সরকার-এরশাদের যোগসাজসে পরিত্যক্ত কারাগারে খালেদা

Google+ Pinterest LinkedIn Tumblr +

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় সাজাপ্রাপ্ত বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে নাজিমউদ্দিন রোডের পরিত্যক্ত কারাগারে বন্দি রাখার পেছনে সরকারের সঙ্গে এরশাদের যোগসাজস আছে বলে দাবি করেছেন লিবারেল ডেমোক্রেটিক পার্টির (এলডিপি) চেয়াম্যান কর্নেল (অব.) অলি আহমদ।

আজ শনিবার বেলা ১১টার দিকে রাজধানীর পূর্ব পান্থপথে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এ সব কথা বলেন অলি আহমদ।

এলডিপি চেয়ারম্যান বলেন, ‘আমরা মনে করি সরকারের পূর্ব পরিকল্পনা অনুযায়ী নির্বাচন থেকে দূরে রাখতে, বিএনপিকে ধ্বংস করতে, খালেদা জিয়াকে অন্যায়ভাবে সাজা দেওয়া হয়েছে। অবিলম্বে তার মুক্তির দাবি জানাচ্ছি। এই দাবিতে বিএনপি  যেসব কর্মসূচি দিচ্ছে, তার প্রতি আমাদের পূর্ণ সমর্থন জানাচ্ছি।’

অলি আহমেদ আরও বলেন, ‘আমরা শুনেছি তাকে (খালেদা জিয়া) কয়েদির কাপড় পরানো হয়েছে এবং পুরনো একটি জেলে রাখা হয়েছে। এটা কী কারণে করা হলো? আমি তো মনে করি এরশাদ (সাবেক রাষ্ট্রপতি) যুক্ত আছে। তাকে নাজিমউদ্দিন রোডের কারাগারে রাখা হয়েছিলো। এটা হয়ত সরকার, আওয়ামী লীগ এবং এরশাদ ঐক্যবদ্ধভাবে এই কাজটা করেছে। একটা পরিত্যক্ত জেলে তাকে (খালেদা জিয়া)  নেওয়ার প্রয়োজন ছিলো না।’

প্রশ্ন রেখে অলি আহমেদ বলেন, ‘সরকার কেরানিগঞ্জ বা কাশিমপুরে কারাগারে খালেদা জিয়াকে স্বসম্মানে রাখতে পারতো। নিজ বাসায়ও পাহারা বসিয়ে রাখতে পারতো। ২০০৭ সালে  সেনা সমর্থিত সরকার শেখ হাসিনা ও খালেদা জিয়াকে স্বসম্মানে সংসদ ভবনে সাবজেল করে রেখেছিল। জিয়াকে  কেনো এ রকম রাখা হলো না-এর জবাব এই সরকারকে একদিন দিতে হবে। সাবেক প্রধানমন্ত্রী,সাবেক সেনাপ্রধান, রাষ্ট্রপতির স্ত্রী, মুক্তিযুদ্ধের ঘোষকের স্ত্রী, সাবেক প্রধানমন্ত্রী হিসেবে খালেদা জিয়া যদি ডিভিশন না পান, তাহলে বাংলাদেশে আর কে ডিভিশন পাওয়ার যোগ্য?’

সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন—এলডিপির মহাসচিব রেদোয়ান আহমেদ, প্রেসিডিয়াম সদস্য আবদুল করিম আব্বাসী, আবদুল গনি, কামালউদ্দিন মোস্তফা, সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব শাহাদাত হোসেন সেলিম প্রমুখ। 

Share.

Leave A Reply