শিশুকে ধর্ষণের পর হত্যা, পুলিশ কর্মকর্তা গ্রেপ্তার

Google+ Pinterest LinkedIn Tumblr +

ভারতের কাঠুয়া জেলায় আট বছর বয়সী এক শিশুকে ধর্ষণ ও হত্যার অভিযোগে পুলিশের উচ্চপদস্থ এক কর্মকর্তা গ্রেপ্তার হয়েছেন।
এনডিটিভির প্রতিবেদনে বলা হয়, গত মাসে কাঠুয়া জেলার এক যাযাবর পরিবার তাদের আট বছর বয়সী মেয়ে নিখোঁজ হয়েছে বলে অভিযোগ করেছিলেন। এর সপ্তাহ খানেক পর ওই শিশুর লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। শিশুটিকে ধর্ষণের পর নির্মমভাবে হত্যা করা হয়েছে।
গ্রেপ্তার হওয়া ওই পুলিশ কর্মকর্তা নাম দীপক খাজুরিয়া (২৮)। তিনি পুলিশের স্পেশাল অফিসার (এসপিও) হিসেবে হিরানগর পুলিশ স্টেশনে কর্মরত।
প্রতিবেদনে আরও বলা হয়, শিশুটির পরিবার নিখোঁজের অভিযোগ করার পর তাকে খুঁজে বের করতে যেসব পুলিশ সদস্যকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছিল তাদের মধ্যে গ্রেপ্তার হওয়া পুলিশ কর্মকর্তা দীপকও ছিলেন।
পুলিশ বলছে, তরুণ ওই পুলিশ কর্মকর্তার দ্বারাই শিশুটি ধর্ষণ ও হত্যার শিকার হয়েছে। শিশুটির লাশ উদ্ধারের পর ক্রাইম ব্রাঞ্চের বিশেষ তদন্ত দল পুলিশ কর্মকর্তা দীপককে গ্রেপ্তার করে।
গত ১০ জানুয়ারি জেলার রাসনা গ্রামে ঘোড়ার চরানোর সময় ওই ছোট্ট শিশুটিকে অপহরণ করা হয়। এরপর গত ১৭ জানুয়ারি শিশুটির বিকৃত লাশ উদ্ধার করে পুলিশ।
শিশুটিকে এক সপ্তাহ ধরে আটকে রেখে পুলিশ কর্মকর্তা দীপক ও নাবালক একটি ছেলে মিলে ধর্ষণের পর হত্যা করে বলে পুলিশ জানিয়েছে।
এ বিষয়ে জম্মু ও কাশ্মীর পুলিশের ক্রাইম ব্রাঞ্চের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (এডিজি) অলক পুরি বলেন, ‘আমরা এ ঘটনার সঙ্গে পুলিশ কর্মকর্তা দীপক খাজুরিয়ার জড়িত থাকার প্রমাণ পেয়েছি।’
পুলিশ জানায়, গ্রেপ্তারের পর অপরাধী স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন। যাযাবর সম্প্রদায়ের মধ্যে আতঙ্ক ছড়ানোর উদ্দেশ্য নিয়েই এই ঘটনা ঘটানো হয়েছে বলে জানা গেছে। 

Share.

Leave A Reply